অদ্ভুত বিয়ের প্রস্তাব


রাস্তায় একাকী গাড়ি চালিয়ে আসছিলেন এক তরুণী। হঠাৎই রায়ট পুলিশ বন্দুক তাক করে গাড়িটির গতি রোধ করে। গাড়ির ভেতরে থাকা আতঙ্কিত তরুণীকে পুলিশ টেনে-হিঁচড়ে বাইরে বের করে দুই হাত মাথার পেছনে রেখে দাঁড়িয়ে থাকার নির্দেশ দেয়। কিন্তু সত্যিকারের সন্ত্রাসী হামলা বা পুলিশি চেকআপ, কোনোটিই ছিল না এটা। রাশিয়ান রায়ট পুলিশের একটি দল এই নাটকটি মঞ্চস্থ করে। আসল ঘটনা সামনে এলো এবারই। হতভম্ব তরুণীটি হাত মাথার পেছনে নিয়ে রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে থাকা অবস্থায় পুলিশের এক সদস্য হাতভর্তি হিলিয়াম গ্যাসের বেলুন নিয়ে তরুণীর দিকে দৌড়ে আসেন, সাথে পুলিশের অন্য সদস্যরাও তরুণীর সামনে এক হাঁটুতে ভর করে বসে পড়েন। এক হাতে হিলিয়াম গ্যাসের বেলুন ও অন্য হাতে ফুল নিয়ে দুই হাত প্রসারিত করে তরুণীকে বিয়ের প্রস্তাব দেন। ক্রন্দনরত ও হতভম্ব মেয়েটি তখনো বুঝতে পারছিলেন না যে, এটা তার জন্য আনন্দের নাকি বেদনার কোনো বিষয়। পরে অবশ্য কিছুক্ষণ চুপ করে দাঁড়িয়ে থেকে তিনি বিয়ের প্রস্তাবে রাজি হয়েছেন। সম্প্রতি রাশিয়ার দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় রস্তভ অন ডন শহরে এ ঘটনা ঘটে। ইন্টারনেট।

অন্য বিডি আপডেট