ত্বক সুন্দর রাখতে কী করবেন


সুন্দর ত্বক সবার কাম্য। ত্বক সুন্দর রাখতে, বিশেষ করে মেয়েদের দৈনন্দিন সময়ের বেশির ভাগই খরচ হয় এর পেছনে। নানা রকম কসমেটিকস, দেশী-বিদেশী বিভিন্ন উপকরণ ত্বকে মেখে শেষটায় ত্বকের ক্ষতিই বাড়িয়ে তোলা হয় বেশি।

ত্বক সজীব রাখতে কী করা উচিত?

বেশি করে পানি খান
পানি শরীরের ত্বকের কোষে কোষে পৌঁছে ত্বককে করে তুলবে প্রাণবন্ত, সজীব।
পানির অভাবে ত্বকে শুষ্কতা দেখা দেয়, ত্বক হয়ে ওঠে খসখসে। অল্প বয়সেই ত্বকে পড়ে বার্ধক্যের ছাপ। বেশি করে পানি খেলে ত্বক সব সময়ই সজীব থাকবে।

সানস্ক্রিন ব্যবহার করুন
সূর্যের আলোর অতিবেগুনি রশ্মি ত্বকের প্রচুর ক্ষতি করে। এই অতিবেগুনি রশ্মি ত্বকের গভীর স্তরকে ভেদ করে চলে যায়। ফলে ত্বকে দেখা দিতে পারে নানা সমস্যা। তাই রোদে বেরোনোর আগে অবশ্যই কার্যকর সানস্ক্রিন ক্রিম মেখে বেরোনো উচিত। এই সানস্ক্রিন সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মিকে ত্বকে প্রবেশে বাধা প্রদান করে। ফলে ত্বক ক্ষতিগ্রস্ত হয়া থেকে রক্ষা পায়। দিনের বেলা সকাল ১০টা, বিকেল ৪টা পর্যন্ত সানস্ক্রিন ছাড়া বেরোবেন না। এমনকি মেঘলা দিনেও সানস্ক্রিন ব্যবহার করা উচিত।

ধূমপান পরিহার করুন
ত্বক সুন্দর রাখতে হলে অবশ্যই ধূমপান পরিহার করতে হবে। এক সমীক্ষায় দেখা গেছে, ধূমপায়ীদের ত্বকে কুঁচকানোর পরিমাণ অধূমপায়ীদের চেয়ে পাঁচগুণ বেশি হয়। ধূমপানের কারণে নিকোটিন রক্ত সঞ্চালনে বাধা দেয়, ফলে ত্বক রক্ত থেকে প্রয়োজনীয় পুষ্টি গ্রহণ করতে পারে না। এ ছাড়া নিকোটিন সেসব এনজাইমকেও ত্বকের সংস্পর্শে আসতে বাধা দেয়- যেসব এনজাইম ত্বকের আঁশ ভেঙে যাওয়াকে প্রতিরোধ করে।

যথাসম্ভব কম প্রসাধনী ব্যবহার করুন
প্রসাধনী ব্যবহারের কারণে ত্বকে অনেক ক্ষতি হতে পারে। কোনো কোনো প্রসাধনসামগ্রী ত্বকে অ্যালার্জি সৃষ্টি করে। তা ছাড়া অতিরিক্ত প্রসাধনী ত্বকে বিভিন্ন সংক্রমণ ঘটায়। এর কারণে ত্বক বিবর্ণ হয় এবং অনেক সময় কালো কালো দাগ তৈরি হয়ে ত্বক তার স্বাভাবিক উজ্জ্বলতা হারায়। তাই যতটা সম্ভব কম প্রসাধনী ব্যবহার করা উচিত।

সময়মতো চিকিৎসা গ্রহণ করুন
অনেক দীর্ঘমেয়াদি অসুখ আপনার চেহারায় বার্ধক্যের ছাপ এনে দিতে পারে। দীর্ঘমেয়াদি অসুখগুলোতে শরীরে অক্সিজেন সরবরাহ ব্যাহত হয়। অক্সিজেনের অভাবে ত্বকে ভাঁজ পড়ে। সুতরাং যেকোনো অসুস্থতায় সময়মতো চিকিৎসা গ্রহণ করা উচিত।

অন্য বিডি আপডেট