বাংলাদেশের জয়


বিনা উইকেটে কুক-ডাকেট যখন সেঞ্চুরি পার্টনারশিপ পূরণ করলেন, ১৭ কোটি বাংলাদেশির চোখে মুখে তখন পরাজয়ের শঙ্কা। আবারো কি তাহলে ভেস্তে যাবে স্বপ্ন?

কিন্তু স্বয়ং কুক-ডাকেটও হয়ত তখনো ভাবতেই পারেননি, এই দিনেরই শেষভাগে সেই পরাজয়ের শঙ্কাটুকু শুধু নয়, বরং সরাসরি পরাজয়ের তিক্ত স্বাদটুকুই পেতে হবে ইংরেজদের।

ঠিক সেটিই হলো মাত্র ২০ ওভারের ব্যবধানে। ২০ ওভারের মাঝেই শেষ হয়ে গেলো ইংলিশ ইনিংস। ঠিক তাসের ঘরের মতোই ধ্বসে গেলো বিশ্বের সবথেকে অভিজ্ঞ টেস্ট দলটি।

আর এই ক্ষণিকেই ইংল্যান্ড বাহিনীকে পর্যদুস্ত করলেন বাংলার সবথেকে অভিজ্ঞ আর সবথেকে কণিষ্ঠ দুই টাইগার সাকিব এবং মিরাজ। দুজনের বাম-ডান স্পিন কম্বিনেশনে একরকমের চোখে অন্ধকারই দেখলো ব্রিটিশ ব্যাটসম্যানরা। আর তাইতো ১০০ রানে বিনা উইকেট থেকে শুরু করে ১৩৯ রানেই নেই ৬ উইকেট। আর এই ৬ উইকেটের ৫টিই একাই দখল করলেন ছোট বাঘ মিরাজ। ৭ম উইকেটে কিঞ্চিত পার্টনারশিপের আভাস দিতে থাকা স্টোকস আর ওকস কিছুটা হতাশ করতে শুরু করলেও সেটি আমলেই যেন নিলেন না সাকিব। ৪৩তম ওভারে এসে একাই তুলে নিলেন তিন তিনটি উইকেট।

শেষ উইকেটে ফিন-ওকস কিছুটা প্রতিরোধ গড়ার চেষ্টা করলেও শেষ বাজিটা মারলেন আবার সেই মিরাজ। ৪৬ তম ওভারে আবার আঘাত হানলেন তিনি। শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হলেন ফিন। সেই সাথে ১০৮ রানের ঐতিহাসিক জয় লাভ করলো বাংলাদেশ।

মিরাজ ৬টি ও সাকিব ৪টি উইকেট নিয়ে বাংলাদেশকে এই স্মরণীয় জয় এনে দিলেন।

অন্য বিডি আপডেট